বিজয়ের মাসে অতিরিক্ত ২০লক্ষ টাকা প্রদান ছাড়াও নতুন অতিদরিদ্র ১’শ সদস্যের অর্ন্তভূক্তি করা হচ্ছে।

dsc_0982

বাঞ্ছারামপুর(ব্রাহ্মনবাড়িয়া) প্রতিনিধি:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় সম্পূর্ণ অলাভজনক,কোন প্রকার সুদ ও সার্ভিস চার্জবিহীন খুব সহজ শর্তে মূল বাজেট থেকে অতিরিক্ত আরো ২০ লক্ষ টাকা বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা সদরস্থ বসুন্ধরা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান(শাহ আলম)এর পৈত্রিক বাড়ী দূর্গারামপুরের ফাউন্ডেশনের কার্যালয়ে প্রদান করা হবে বলে ফাউন্ডেশন সূত্রে জানা গেছে।

ফাউন্ডেশনের ইনচার্জ মো.মোশারাফ হোসেন জানান,এ যাবত বিতরনকৃত(ঘূর্ণায়মান পদ্বতিতে)চলমান ২ হাজার ৮’শ সাতজন উপকারভোগীর মধ্যে ইতোমধ্যে ১ কোটি ৫৩ লাখ ৬২ হাজার ৫শ টাকা ক্ষুদ্রঋণ বিতরন করা হয়েছে এবং এদের প্রায় সকলেই স্বাবলম্বী বা স্বাবলম্বী হওয়ার পর্যায়ে রয়েছে।জানা গেছে,আসন্ন ক্ষুদ্রঋণ বিতরন কার্য্যক্রমে পূর্বের বিভিন্ন ক্ষেত্রে উপকারভোগী পুরাতন সদস্যগন ছাড়াও নতুন আরো ১’শ সদস্য এর সাথে যুক্ত হতে যাচ্ছে।ঐদিন(বৃহস্পতিবার)প্রায় ৩শ’ ৪০ জন সদস্যদের মধ্যে ২৩ লক্ষাধিক সুদমুক্ত ক্ষুদ্রঋণ বিভিন্ন হারে বিতরন করা হবে।

ঋণ বিতরন অনুষ্ঠানে স্থানীয় গন্যমান্য ও গণমাধ্যমের বিভিন্ন সদস্য ছাড়াও প্রধান অতিথি হিসেবে গ্রুপের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ডাইরেক্টর ও প্রধান হিসাব রক্ষক(অর্থ)এবং বসুন্ধরা ফাউন্ডেশনের সমন্ধয়ক ময়নাল হোসেন চৌধুরী উপস্থিত থাকবেন।

উল্লেখ্য,বছরে চারবার অর্থাৎ-প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর এই ক্ষুদ্রঋণ সমাজের দুস্থ,দরিদ্র ও অতিদরিদ্রদের মাঝে ঘূর্ণায়মান পদ্ধতিতে বিতরন করা হয়ে থাকে,১৫ডিসেম্বরের বিতরন কার্য্যক্রম চলতি বছরের শেষ দফা এবং বিজয় দিবসের প্রাক্কালে আগের দিন হওয়ায় এ নিয়ে বাঞ্ছারামপুরের দরিদ্রজনগোষ্ঠী দিনটির প্রতীক্ষায় উন্মুখ হয়ে আছে।

ক্ষুদ্র ঋণ নিয়ে স্বাবলম্বী সফল তাঁতী সোনারামপুর গ্রামের আনু বেগম জানান,-“ আমাদেরও দীর্ঘদিনের চাওয়া এ বছর বিজয়ের মাসে সম্ভবত পূরন হতে চলেছে।আমরা ফাউন্ডেশন সূত্রে জেনেছি ঋণের পরিমান বৃদ্ধি করা হচ্ছে,এ টি অবশ্যই সুদমুক্ত উপকারভোগী ঋণগ্রহীতাদের জন্য সুখবর”।দূর্গারামপুর গ্রামের সমাজসেবক মো.হযরত আলী জানান,-‘দেশের শত-শত বেসরকারী সংস্থা ও এন,জি,ও নামধারী প্রতিষ্ঠানগুলো দ্রারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে প্রহসনমূলক’অতি মুনাফার ফাঁদে ফেলে যে ক্ষুদ্র ঋণ বিতরন করছে, বসুন্ধরা ফাউন্ডেশনের -১০০% অলাভজনক-সুদ মুক্ত এই উদ্যোগ সীমাহীন প্রশংসার দাবী রাখে”।

Have your say