মেহেদি ফুড কোর্ট উদ্বোধন করেন সায়েম সোবহান আনভীর

‘বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ফুড কোর্টে আমি গিয়েছি। শুধু বাংলাদেশ নয়, দক্ষিণ এশিয়ার অন্য কোনো দেশে এত বড় ফুড কোর্ট আমার চোখে পড়েনি। আমি এর সাফল্য কামনা করি। একটি ভালো আইডিয়া অনেক কিছু বদলে দিতে পারে। বসুন্ধরা শিল্প গ্রুপের সেই আইডিয়া ও দূরদৃষ্টি রয়েছে। বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা ও শপিং মল এর বড় দৃষ্টান্ত।’

গতকাল শুক্রবার রংধনু গ্রুপের প্রতিষ্ঠান ‘মেহেদি ফুড কোর্টের’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এসব কথা বলেন। বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা এবং পূর্বাচলের ৩০০ ফুট সড়কের উত্তর পাশে নির্মাণ করা হয়েছে এই ফুড কোর্ট। এতে রয়েছে দুই হাজার ১৬টি স্টল। এ ছাড়া শিশুদের খেলাধুলা ও আগতদের হাঁটাচলার জন্য রাখা হয়েছে পর্যাপ্ত উন্মুক্ত স্থান। ফুড কোর্টটি উদ্বোধন করেন দেশের বৃহৎশিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীর।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের উন্নয়ন টেকসই করার লক্ষ্যে দুষ্কৃতকারী, সন্ত্রাসী ও মাদক কারবারিদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী। বর্তমানে বাংলাদেশে মাথাপিছু আয় দুই হাজার ডলার। দেশের অর্থনীতির ভিত শক্ত করার পেছনে ব্যবসায়ীদের ভূমিকা অনেক বেশি। বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান ও তাঁর সুযোগ্য সন্তানেরা এ ক্ষেত্রে অগ্রগণ্য।’

মেহেদি ফুড কোর্টের উদ্বোধন ঘোষণা করে সায়েম সোবহান আনভীর বলেন, ‘আশা করছি এই ফুড কোর্ট ভালো চলবে। আমার শুভ কামনা রইল এই প্রতিষ্ঠানের প্রতি।’

রংধনু গ্রুপের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি প্রমুখ।

শামীম ওসমান এমপি বলেন, ‘কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে বসুন্ধরা গ্রুপের অবদান অসামান্য। আমার বিশ্বাস রংধনু গ্রুপের এই প্রতিষ্ঠানও খুব ভালো করবে। দেশের উন্নতি এবং দুষ্কৃতকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণে প্রধানমন্ত্রীর অসামান্য অবদানের জন্য গণমাধ্যমের উচিত তাঁকে ধন্যবাদ দেওয়া। আমি প্রধানমন্ত্রীর জন্য সবার কাছে দোয়া চাই।’

নজরুল ইসলাম বাবু এমপি বলেন, ‘বিশ্বের অন্যান্য দেশের ফুড কোর্টের চেয়েও মেহেদি ফুড কোর্ট সুন্দর। এর অবস্থানও চমত্কার জায়গায়। আমি এর সার্বিক সাফল্য কামনা করি।’

সভাপতির বক্তব্যে রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘মেহেদি ফুড কোর্টের এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আসার জন্য প্রধান অতিথি, উদ্বোধক ও বিশেষ অতিথিদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। এই প্রতিষ্ঠান ভালোভাবে চালানোর জন্য সবার দোয়া চাইছি।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর পুলিশের গুলশান জোনের উপকমিশনার সুদীপ্ত কুমার চক্রবর্তী ও ট্রাফিক পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) প্রবীর কুমার রায়। ফুড কোর্ট উদ্বোধন উপলক্ষে সন্ধ্যায় আয়োজিত মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে দেশের খ্যাতিমান সংগীতশিল্পী গান পরিবেশন করেন।

Tags: